Friday, July 26, 2019

কর্ণাটকে সরকার গঠন সহজ হচ্ছে না বিজেপির

 

আস্থা ভোটে জোট সরকারের পতন হলেও কর্ণাটকে বিজেপির সরকার গঠন নিয়ে এখনো অনিশ্চয়তা দূর হয়নি। কর্ণাটকের বিজেপি নেতারা আজ বৃহস্পতিবার দিল্লি এসে সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর সঙ্গে দেখা করেন। দলীয় সূত্রের খবর, বিদ্রোহী বিধায়কদের রাজনৈতিক ভাগ্য নির্ধারিত হওয়ার আগে বিজেপি সরকার গড়ার পথে পা বাড়ানো নিয়ে দোলাচলে। কর্ণাটকে তিন বারের মুখ্যমন্ত্রী বিজেপির প্রবীণতম নেতা বি এস ইয়েদুরাপ্পার পুত্র বিজয়েন্দ্র দিল্লিতে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, সব দিক খতিয়ে দেখে দল ঠিক সময়ে সিদ্ধান্ত নেবে।

বিকল্প সরকার গড়তে বিজেপির সাবধানতার কারণ জোটের বিদ্রোহী সদস্যদের ভবিষ্যৎ এখনো চূড়ান্ত হয়নি। দলত্যাগ বিরোধ আইন অনুযায়ী কংগ্রেস ও জেডিএসের ১৫ জন বিদ্রোহী বিধায়কের সদস্য পদ খারিজ হবে কি না সে বিষয়ে বিধানসভার স্পিকার কে আর রমেশ এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেননি। তাঁদের সদস্য পদ খারিজ হয়ে গেলে ২২৫ সদস্যের বিধানসভার সংখ্যা কমে দাঁড়াবে ২১০। সদস্য পদ খারিজ হয়ে গেলে ওই বিধায়কদের কেন্দ্রে উপনির্বাচন হবে। উপনির্বাচনে জয় নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকতেই পারে। এই অবস্থায় পদত্যাগীদের কেউ কেউ সিদ্ধান্ত বদল করবেন কি না সে বিষয়ে বিজেপি নিশ্চিত হতে চায়। কারণ, আস্থা ভোটে যাঁরা ভোট দেননি, তাঁদের সবাই যে নতুন সরকারকে আস্থা ভোটে সমর্থন করবেন সেই গ্যারান্টি বিজেপি এখনো পাচ্ছে না। দলত্যাগ বিরোধী আইন অনুযায়ী কত দিনের মধ্যে সদস্যপদ খারিজ করতে হবে সে বিষয়টি অনুচ্চারিত। সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণভাবে স্পিকারের ওপর নির্ভরশীল।

No comments:

Post a Comment