Wednesday, October 23, 2019

হবিগঞ্জে মধ্যযুগীয় কায়দায় কুপে ২ সন্তানের মাকে হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী :: ঘাতক স্বামী আটক। আইসিটিনিউজ বিডি২৪

আইসিটিনিউজ বিডি২৪: আজিজুল ইসলাম সজীব,হবিগঞ্জ প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার বুল্লা ইউনিয়নের ভরপুর্নী গ্রামে গাঁজা খাওয়ার টাকা না দেওয়ায় স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা করেছে ঘাতক স্বামী। ঘাতক মকসুদ জবাই করেই ক্ষান্ত হয়নি, ২ হাতের আঙ্গুল হাতে কব্জিসহ সারা দেহে মোট ১৫ ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে।
সোমবার গভীর রাতে বুল্লা ইউনিয়নের ভরপূর্নী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আটককৃত  হত্যাকারী নেশাখোর স্বামী মকসুদ আলী (৪০) উপজেলার বুল্লা ইউপির ভরপূর্নী (বড় বাড়ি) গ্রামের মৃত খেলু মিয়ার পুত্র। নিহত স্ত্রী একই ইউপির গোয়াকাড়া গ্রামের একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক। বিয়ের পর তাদের সংসারে ফুটফুটে ২ সন্তানের জন্ম হয়। মেয়ের বয়স ৫ বছর ও ছেলের বয়স ১৭ মাস ।ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার গভীর রাতে ঘটে।
জানা যায়, তাদের মধ্যে প্রতিদিনই  নেশার টাকার বিষয় নিয়ে
ঘাতক পাষন্ড স্বামী আজ রাতে আবার ঘরে এসে স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। টাকা নাই বলতেই ঘাতক মকসুদ মিয়া উত্তেজিত হয়ে স্ত্রীকে মাহমুজা বেগম (৩২) কে  উপর্যুপরি দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে ।
এ সময় তার শোর-চিৎকারে আশপাশের প্রতিবেশীরা ও স্থানীয় ইউপি সদস্য এসে ঘাতক স্বামী মকসুদ আলীকে একটি ঘরে আটক করে রাখেন । পরে ইউপি সদস্য মোঃ মহিবুর রহমানকে ঘটনাটি  ইউপি চেয়ারম্যান বেনু মিয়াকে জানালে  তিনি লাখাই থানা পুলিশকে অবহিত করেন ।
খবর পেয়ে লাখাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইদুল ইসলাম নেতৃত্বে  অজয় চন্দ্র দেব (ওসি) তদন্ত এস আই সজীব দেব রায়সহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। এ সময় ঘাতক স্বামী মকসুদ আটক করে পুলিশ।
উল্লেখ , প্রায় ১০ বছর আগে একই ইউনিয়নের গোয়াকাড়া গ্রামে বাসিন্দা শিক্ষক সালামের কন্যা মাহফুজা বেগমকে বিয়ে করে ভরপূর্নি গ্রামের মৃত খেলু মিয়ার পুত্র মছকুদ আলী। বিয়ের পর তাদের সংসারে ২ সন্তান জন্মগ্রহণ করে। ১- মেয়ে মোছা: জান্নাত খাতুন (৫),  ২- ছেলে জারিফ হাসান (১৭ মাস)
বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন কারনে মকসুদ তার স্ত্রীকে অমানুষিক নির্যাতন করত নেশা খাওয়ার বাবার বাড়ি থেকে এনে দেওয়ার জন্য। এক পর্যায়ে স্ত্রী মাহফুজার মামলায় কারাভোগ করেন স্বামী মকসুদ আলী। এ সময়  মাহফুজা সন্তানদের নিয়ে বাবার বাড়িতে চলে যায়।
সম্প্রতি জেল হাজত থেকে ছাড়া পেয়ে  মছকুদ আলী স্ত্রী মাহফুজা তার দুই সন্তানসহ বাড়িতে নিয়ে আসেন।
সোমবার রাতে ১ টার দিকে নেশার টাকার জন্য স্বামী-স্ত্রীর মাঝে তুমুল ঝগড়ার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে পাষণ্ড স্বামী মছকুদ আলী ‘ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে। পরে মৃত নিশ্চিত করতে জবাই করে স্ত্রী মাহফুজাকে হত্যা করে।
এ সময় পাশের কক্ষে থাকা মকসুদ আলীর মা দুই শিশুকে উদ্ধার করে ঘরের বাইরে নিয়ে ২ শিশুকে বাঁচান।
লাখাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইদুল ইসলাম  ও ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশ উদ্ধার করে আজ (মঙ্গলবার) দুপুরে  ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।  তিনি আরো বলেন আটককৃত আসামীর বিরুদ্ধে হত্যা দায়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে ।

No comments:

Post a Comment